10 C
Los Angeles
Monday, April 15, 2024

আইয়ুব বাচ্চু নেই, এলআরবির অন্যরা কে কোথায়

আইয়ুব বাচ্চু এবং তার স্বপ্নের ব্যান্ড এলআরবি...

শ্বাসকষ্টের রোগী এখন কেন এত বাড়ছে

রাজধানীর একটি গুরুত্বপূর্ণ আসাদগেটের কলেজের শিক্ষক, নীতা...

ইসরায়েলে অস্ত্র বিক্রি বন্ধের প্রস্তাব পাস, পক্ষে ভোট বাংলাদেশের

ইসরায়েলের অস্ত্র বিক্রি বন্ধের আহ্বান প্রস্তাবের প্রস্তাব...

ইফতারে যা খাবেন আর যা এড়িয়ে যাবেন।

জীবনযাপনইফতারে যা খাবেন আর যা এড়িয়ে যাবেন।

রমজান মাসে যারা রোজা রাখেন, তাদের বেশিরভাগের রোজা শুরুর দিনগুলোতে বদহজমের সমস্যা হয়ে থাকে। রোজার সময় খাওয়ার প্রথমে অভ্যাস পরিবর্তন হয়। রাতে অল্প সময়ে কয়েকবার খাওয়া হয়, যা পেটে এসিডিটি তৈরি করে। এই সমস্যাটি সাধারণত সাময়িক। কিছুদিন পর এটি ঠিক হয়ে যায়। অবশ্যই খেতে বা এই সমস্যার জন্য অসুস্থ হওয়ার চেষ্টা করবেন না।

রোজার সময় ইফতারে ভাজাপোড়া খাবার না হলে অনেকের মনে হয় যেন ইফতার না হয়ে যায়। তাই অনেকে পেঁয়াজু, আলুর চপ, বেগুনি, ফ্রাই এসব খাবার খায়। তবে এই খাবারের জন্য বদহজমের আরেকটি কারণ হতে পারে। ইফতারে এই খাবারের পরিবর্তে স্বাস্থ্যকর খাবার খেতে পারেন। ইফতারের খাবার দুই ভাগে ভাগ করা উচিত। মাগরিবের নামাজের আগে ও পরে। ইফতার শুরু করতে হলে খেজুর ও পানি, ফলের জুস খাবেন। এই সময়ে পানি প্রয়োজন হবে বেশি করে। যেহেতু এই পানি কোমল নয়, এটি পেটের সমস্যার সম্মুখীন হতে পারে। মাগরিবের নামাজ পড়ার পর ভারি খাবার খেতে পারেন, যেমন- রুটি, দই-চিড়া, ভাত ইত্যাদি।

বেশি পরিমাণে খাবার খাবার উচিত নয়। এটি এসিডিটির সমস্যার বৃদ্ধি করে। মিষ্টি জাতীয় খাবার কম খাবার উচিত। আঁশসমৃদ্ধ খাবার অনেক ভালো। রুটি, ডাল, শাকসবজি, ফলমূল, শিমের বিচি ইত্যাদিতে আঁশ থাকে।

প্রচুর পরিমাণে পানি পান করুন এবং পরিমিত বিশ্রাম নিন। আশা করা যায় সমস্যাটি কমে যাবে। এই পরিবর্তনেও যদি কোন উপায় না পাওয়া যায়, তবে চিকিৎসকের পরামর্শ অবশ্যই নিন।

Check out our other content

Check out other tags:

Most Popular Articles